Tuesday, July 16, 2024
দেশবিনোদন

সাজেক ভ্যালি

সাজেক ভ্যালি ভ্রমণকারীদের কাছে অন্যতম জনপ্রিয় এক গন্তব্যের নাম। দেশের মধ্যে জনপ্রিয়তার দিক থেকে কক্সবাজারের পরে সাজেক ভ্যালির অবস্থান। রাঙ্গামাটি পার্বত্য জেলার বাঘাইছড়ি উপজেলার সাজেক ইউনিয়নে সাজেক ভ্যালি অবস্থিত। আর এই সাজেক, দেশের বৃহত্তম ইউনিয়ন হিসেবেও পরিচিত। সমুদ্রপৃষ্ঠ থেকে এর উচ্চতা ১৮০০ ফুট।

প্রাকৃতিক সৌন্দর্য

সাজেক ভ্যালি পাহাড়, জঙ্গল এবং মেঘে আবৃত একটি উপত্যকা। এখানকার প্রাকৃতিক দৃশ্য দেখে মুগ্ধ হতে হয়। সূর্যোদয় এবং সূর্যাস্তের দৃশ্যগুলি অত্যন্ত মনোমুগ্ধকর।

বসবাসকারী জনগোষ্ঠী

সাজেক ভ্যালিতে বিভিন্ন উপজাতি গোষ্ঠীর লোকেরা বসবাস করে, যেমন: চাকমা, মারমা এবং লুসাই। তাদের জীবনধারা, সংস্কৃতি এবং ঐতিহ্য পর্যটকদের কাছে খুবই আকর্ষণীয়।

পর্যটকদের আকর্ষণ

সাজেক ভ্যালিতে পর্যটকদের জন্য থাকার ব্যবস্থা, যেমন কটেজ ও রিসোর্ট রয়েছে। এছাড়া, বিভিন্ন রেস্টুরেন্টে স্থানীয় খাবার পাওয়া যায়। সাজেক ভ্যালি থেকে সাইকেল ভ্রমণ, ট্রেকিং এবং স্থানীয় বাজার পরিদর্শনের ব্যবস্থা রয়েছে।

সাজেকের আবহাওয়া

সাজেক ভ্যালির আবহাওয়া সাধারণত শীতল এবং মনোরম থাকে। বিশেষ করে বর্ষাকালে মেঘে ঢাকা সাজেকের দৃশ্য পর্যটকদের মুগ্ধ করে।

ভৌগোলিক অবস্থান

এটি রাঙ্গামাটি জেলায় অবস্থিত হলেও ভৌগোলিক কারণে খাগড়াছড়ি জেলার দীঘিনালা থেকে যাওয়া সহজ। খাগড়াছড়ি জেলা সদর থেকে ৭০ কিলোমিটার এবং দীঘিনালা উপজেলা সদর থেকে ৪০ কিলোমিটার দূরে সাজেক অবস্থিত।

সাজেক ভ্যালির এই অপূর্ব সৌন্দর্য এবং এখানকার মানুষের আন্তরিকতা পর্যটকদের কাছে এক অনন্য অভিজ্ঞতা প্রদান করে। তাই, সাজেক ভ্যালি ভ্রমণের জন্য একটি অত্যন্ত আকর্ষণীয় গন্তব্যস্থল।

এটি রাঙ্গামাটি জেলায় অবস্থিত হলেও ভৌগোলিক কারণে খাগড়াছড়ি জেলার দীঘিনালা থেকে যাওয়া সহজ। খাগড়াছড়ি জেলা সদর থেকে ৭০ কিলোমিটার এবং দীঘিনালা উপজেলা সদর থেকে ৪০ কিলোমিটার দূরে সাজেক অবস্থিত।